Guides & Tips

ভাল মোবাইল চেনার উপায় জেনে নিন

স্মার্টফোন কেনার আগে অনেক কিছু দেখে-শুনে-বুঝে কেনা উচিত। এ ছাড়া আপনি কীভাবে ফোনটি ব্যবহার করবেন তার ওপরও নির্ভর করে ফোন কিনা উচিৎ। আজকে আমি আপনাদের জানাবো কিভাবে আপনি একটি ভাল ফোন চিনবেন। বর্তমান সময়ে আমরা সবাই কম বেশি মোবাইল ফোন ব্যবহার করি। আর বর্তমান সময়ে স্মার্ট ফোনের গুরুত্ব ও আমরা সবাই বুঝি।

বর্তমান যুগের মোবাইলে শুধু কথা বলা হয় না । করা হয় নানা রকম ইন্টারনেটের কাজ। তাই স্মার্ট ফোন অনেক প্রয়োজনীয় একটি বস্তু। কিন্তু আমরা যখন নতুন মোবাইল কিনতে যাই তখন আমাদের অনেকের মনে প্রশ্ন জাগে কি ফোন কিনব। কোন ফোন ভালো হবে। এরকম হাজারো প্রশ্ন দেখা দেয়। তাহলে চলুন আজকে আমরা জেনে নিই কিভাবে ভাল মোবাইল চেনা যায়।

প্রসেসর

একটি ভালো ফোনের বৈশিষ্ট্য হলো এতে একটি উন্নত মানের প্রসেসর থাকবে। মোবাইল ফোনের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ জিনিস হলো প্রসেসর। ফোনের প্রসেসর যদি নরমাল হয় তাহলে আপনি ফোনটি ইউজ করার কয়েক মাস পরে আপনার ফোনটি স্লো হতে থাকবে বা হ্যাং করবে। বর্তমান সময়ের মোবাইলে যদি স্নাপ ড্রাগন ৭৩০ বা তার বেশি চিপসেট ব্যবহার করা হয় তাহলে সেই ফোন গুলোকে ভালো মোবাইল হিসেবে ধরা হয়।

4th জেনারেশন সাপোর্টেড মোবাইল

মোবাইল কেনার আগে আপনাকে লক্ষ রাখতে হবে আপনার মোবাইল কোন জেনারেশন সাপোর্ট করে। এখন আমাদের দেশে ৪জি মোবাইল এবং নেটওয়ার্ক চলে এসেছে । সুতারাং মোবাইল কেনার সময় আপনাকে অবশ্যই ৪জি মোবাইল কেনা উচিত । এতে আপনি সুপার স্পিডের সাথে সকল ইন্টারনেটের কার্যক্রম উপভোগ করতে পারবেন।

ব্যাটারি পারফরম্যান্স

মোবাইল কেনার আগে অবশ্যই ব্যাটারি পারফরম্যান্স এবং ব্যাকআপ কিরকম তা জেনে নেওয়া উচিত। কারণ ভালো মোবাইলের বৈশিষ্টের মধ্যে ব্যাটারি অন্যতম। ব্যাটারি ব্যাকআপ এবং পারফরম্যান্স যত ভালো হবে আপনার মোবাইল ও ততো ভালো কাজ করবে । কমপক্ষে 5000 mAh এর মোবাইলকে ভাল মোবাইলের তালিকায় রাখা যায়।

ক্যামেরা

স্মার্ট ফোন জনপ্রিয় হবার অন্যতম কারণ হলো এর ক্যামেরা। স্মার্ট ফোনে একাধিক ক্যামেরা থাকার কারণে এটি ছোট বড় সবাইকেই আকর্ষণ করে। আর আমরা সবাই জানি এখনকার সময়ে ক্যামেরা একটি গুরুত্বপূর্ণ জিনিস। তাই মোবাইল কেনার সময় এর ক্যামেরার কোয়ালিটি দেখে কিনবেন। পিছনের ক্যামেরা যেন কমপক্ষে ১২ মেগা পিক্সেল হয় সেদিকে খেয়াল রাখবেন।

মোবাইলের স্টোরেজ

আপনার মোবাইলে যতই উন্নত মানের প্রসেসর থাকুক কিন্তু আপনার মোবাইলের স্টোরেজ যদি কম থাকে তাহলে আপনার মোবাইলটি ঠিক মতো কাজ করবে না । আপনার মোবাইলের ক্যামেরা, গেম ডাউনলোড, ইন্টারনেট ধীর গতি হয়ে যাবে। যা আপনার কাছে বিরক্তিকর মনে হবে। তাই কমপক্ষে ৪ জিবি ram এবং ৬৪ জিবি স্টোরেজ এর ফোন নেওয়ার চেষ্টা করুন।

অপারেটিং সিস্টেম

মোবাইল ফোনের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হলো এর অপারেটিং সিস্টেম। মোবাইলের অপারেটিং সিস্টেম কে এর কেন্দ্রীয় কাজ বলা যায়। কারণ এটি আপনাকে ফোনের আ্যপ এবং অন্যান্য কাজ নিয়ন্ত্রন করে। আ্যান্ডরয়েড ১১ বর্তমানে সবচেয়ে লেটেস্ট অপারেটিং সিস্টেম। আ্যাপেল ফোনে আইওএস ১৪ অপারেটিং সিস্টেম সবচেয়ে লেটেস্ট। তাই মোবাইল কেনার সময় সবচেয়ে আপডেট অপারেটিং সিস্টেমের মোবাইল কিনুন।

স্মার্ট ফোনের নতুন ফিচার

স্মার্ট ফোনের নতুন ফিচার অর্থাৎ ইন ডিসপ্লে ফিঙ্গার প্রিন্ট, সিকিউরিটি লক, ফেসলক, আইপি এসে ডিস্পেলে , NFC এগুলো দেখে মোবাইলটি কিনুন তাহলে মোবাইলের সার্ভিস ভালো পাবেন।

Free Tips

  • যদি বাজেট অনেকটা বেশি থাকে, আইফোন কেনাই ভালো।
  • ফোন কেনার সময় সবার আগে যেটি দেখবেন সেটি হলো প্রসেসর। ভালো প্রসেসর মানেই হলো সুপারফাস্ট পারফরমেন্স, গেম খেলার সময়ে ফোন হ্যাং করবে না এবং ফটো এডিটিং ও হবে তাড়াতাড়ি। স্ন্যাপড্র্যাগন ৭৩০ সিরিজ থেকে ৮০০+ প্রসেসরের মোবাইল কিনার চেষ্টা করুন।
  • 4G সাপোর্ট করবে এমন ফোন কেনার চেষ্টা করুন।
  • ৪ জিবি র‌্যামের ফোন কেনাই সবচেয়ে ভালো। নাহলে অন্তত ৩ জিবি র‌্যাম যেন থাকে।
  • চেষ্টা করবেন অ্যামোলেড ডিসপ্লের ফোন কিনতে। প্রখর রোদে দাড়ালেও পরিষ্কার দেখতে পারবেন স্ক্রিন।
  • অন্ততপক্ষে ৬৪ জিবি ইন্টারনাল মেমরি আছে এমন ফোন কিনবেন।
  • ক্যামেরার কোয়ালিটি কেমন তা যাচাই করে দেখুন। মেগাপিক্সেল বেশি মানেই যে ক্যামেরা কোয়ালিটি ভালো এমনটি নয়।
  • ব্যাটারি লাইফ ৫০০০ mAh হলেই ভালো।
  • ওয়াই-ফাই সব স্মার্টফোনেই থাকে। তবে চেষ্টা করবেন ব্লু-টুথ ৩.০ রয়েছে এমন ফোন কিনতে কারণ এটি থাকলে স্মার্টওয়াচের সঙ্গে আপনার মোবাইল কানেক্ট করতে পারবেন। তা ছাড়া জিপিএস রয়েছে এমন ফোন কেনার চেষ্টা করবেন।
  • যারা ফোনে ভিডিও দেখেন, গান শোনেন বা সিনেমা দেখেন তাঁরা সারাউন্ড সাউন্ড স্পিকার রয়েছে এমন মোবাইল কিনলেই ভালো।
  • ফিঙ্গারপ্রিন্ট, শ্যাটারপ্রুফ, স্ক্র্যাচ-প্রুফ স্ক্রিন, গোরিলা গ্লাস, ওয়াটারপ্রুফ, NFC এই ফিচারসগুলো আছে কিনা দেখে নিন।

Leave a Reply

Back to top button