Guides & Tips

মোবাইল স্লো হলে কি করব

সময়ের সাথে সাথে অনেক ফাস্ট এবং আপডেটেড মোবাইলও স্লো হয়ে পড়ে। বর্তমান সময়ে স্মার্টফোনের সবচেয়ে বড় সমস্যা স্লো হয়ে যাওয়া বা টাচ রেস্পন্সিভ কমে যাওয়া। এতে করে ফোনে ঠিকমতো কাজ করা যায় না। মোবাইল স্লো হলে কি করবেন তা নিয়েই আজকের এই পোষ্ট।

অপারেটিং সিস্টেম আপডেট

মোবাইল স্লো হওয়ার প্রথম এবং প্রধান কারণ হল অপারেটিং সিস্টেম সব সময় আপডেট না রাখা। অপারেটিং সিস্টেম আপডেট করা খুবই জরুরি। কারণ অপারেটিং সিস্টেমের আপডেটের মাধ্যমে বিভিন্ন বাগ এবং ল্যাগ ফিক্স হয়। তাই অপারেটিং সিস্টেম এর আপডেট আসলেই সঙ্গে সঙ্গে আপডেট করতে হবে। অপারেটিং সিস্টেম এবং ফোনে থাকা অ্যাপ নিয়মিত আপডেট রাখলে আপনার ফোন স্লো হওয়ার সম্ভাবনা অনেকটাই কমে যাবে।

অ্যাপস আপডেট রাখা

অ্যান্ড্রয়েডের অ্যাপসগুলো আপডেট না রাখলে ফোনের গতি স্লো হতে পারে। যে কোনো অ্যাপসের নতুন আপডেট এলে সেই অ্যাপসটি সাথে সাথে আপডেট দিয়ে দিবেন। এতে করে আপনার সেটটি স্লো হওয়া থেকে বাচবে।

ফ্যাক্টরি ডাটা রিসেট

যদি আপনার মোবাইলটি অতি মাত্রায় স্লো হয়ে যায়, তাহলে আপনি ফ্যাক্টরি ডাটা রিসেট দিতে পারেন। ফ্যাক্টরি ডাটা রিসেট দেওয়ার আগে অবশ্যই আপনার ফোনের সব ছবি, নম্বর ইত্যাদি ব্যাকআপ নিয়ে রাখবেন। কারণ, ফ্যাক্টরি ডাটা রিসেট দিলে ফোনের সব কিছু মুছে যায়। এরপর আবার মোবাইলটি নতুনভাবে সেট-আপ করতে হয়।

মেমরি স্টোরেজ ফুল

মোবাইলে অতিরিক্ত অ্যাপ, ছবি, গান, ভিডিও ইত্যাদি রাখার কারণে অনেক সময় ফোনের মেমরি ফুল হয়ে যায়। যার কারণে আপনার ফোনটি স্লো হয়। এর কারণ হলো র‌্যাম যথেষ্ট মেমরি স্পেস দিতে পারে না। তাই যত দ্রুত সম্ভব ফোন থেকে অপ্রয়োজনীয় অ্যাপ, গান, ছবি, ভিডিও বা অন্য কোনো ফাইল ডিলিট করে দিন।

ব্যাটারি পরিবর্তন

মোবাইলের ব্যাটারিটি যদি অনেক দিনের পুরনো হয় তাহলে ও অনেক সময়ে ফোন স্লো কাজ করে। এমনকি ফোন কোনো কারণ ছাড়াই গরম হয়ে যায়। তাই এর থেকে মোবাইলটিকে বাঁচাতে ব্যাটারি বদলাতে হবে। কেননা পরে অতিমাত্রায় গরম হয়ে যে কোনো সময় স্মার্টফোনটি ব্লাস্ট করতে পারে।

অ্যাপ অডিট এর সাহায্য নেয়া

অ্যাপ অডিট হচ্ছে এমন একটি তালিকা, যেখানে মোবাইলের সমস্ত অ্যাপস একসাথে দেখানো থাকে। এর সুবিধা হচ্ছে এখানে মোবাইলের সমস্ত অ্যাপস এর তালিকা থাকার পাশাপাশি কোন অ্যাপস কোন কাজ করবে তাও লিখা থাকে। এতে করে সহজেই অ্যাপসগুলোর কাজ সম্পর্কে ধারনা পাওয়া যায় এবং একই রকমের একাধিক অ্যাপস থাকলে সেটি ডিলিট করা যায়। পাশাপাশি যে অ্যাপসটি ব্যবহার করা হয়না সেটিও ডিলিট করে দেয়া যায়।

মোবাইলের সেটিংস থেকে App Manager এ গেলেই এটা করতে পারবেন।

ক্যাশ ক্লিন করা

মোবাইল প্রতিনিয়ত ব্যাবহার করার ফলে স্টোরেজে কিছু ক্যাশ ফাইল জমা হয়। এগুলা মোবাইলে অনেকটা জায়গা দখল করে থাকে। এর জন্য মোবাইল অনেক সময় স্লো হয়ে যায়। তাই এসব ক্যাশ মেমোরি নিয়মিত পরিষ্কার করতে হবে। এর জন্য মোবাইলের সেটিংসে গিয়ে স্টোরেজ এ ক্লিক করতে হবে। সেখান থেকে ‘ক্লিয়ার ক্যাশ’ অপশনটি ক্লিক করলে ক্যাশ মেমোরি ক্লিন করা যাবে।

অটো আপডেট অফ করে দেয়া

যদিও সব অ্যাপ আপডেট করা জরুরি। কিন্তু অনেক সময় অটো আপডেট চালু করে রাখলে সেটি বিভিন্ন সমস্যা ও সৃষ্টি করে থাকে। অটো আপডেট হওয়ার সময় মোবাইল স্লো হয়ে যেতে পারে। তাই এখনই প্লে স্টোর এর সেটিংস থেকে অটো আপডেট অপশনটি অফ করে দিন। এবং একসাথে সব আপডেট না দিয়ে নিজের প্রয়োজনমত একটা একটা করে অ্যাপস আপডেট করুন।

লাইভ ওয়ালপেপার বন্ধ করুন

মোবাইলে লাইভ ওয়ালপেপার, CPU এর উপর অনেক বেশি চাপ সৃষ্টি করে ফলে মোবাইল স্লো হয়ে পড়ে। কারণ লাইভ ওয়ালপেপার চালু রাখার জন্য প্রসেসর সর্বদা ব্যস্ত থাকে। যার ফলে অন্যান্য কাজ করবার সময় প্রসেসরের ওপর প্রচুর চাপ সৃষ্টি হয়। তাই আপনি যদি লাইভ ওয়ালপেপার ইউজ করে থাকেন তাহলে এটি এখনি বন্ধ করে দিন।

ব্রাউজার ডাটা মুক্ত রাখুন

যদি আপনি দীর্ঘদিন যাবত ওয়েব ব্রাউজার এর সার্চ হিস্টোরি এবং cache ক্লিয়ার না করেন তাহলেও মোবাইল slow কাজ করবে। তাই আজই সকল ব্রাউজারের সার্চ হিস্টোরি ক্লিয়ার করে দিন।

অ্যাপের লাইট ভার্সন ব্যবহার করুন

আজকাল অনেক অ্যাপ্লিকেশন ডেভলপার অ্যাপ্লিকেশনের লাইট ভার্সন তৈরি করেছে। ওই সমস্ত অ্যাপ্লিকেশানগুলি less processing power এর ওপর ভিত্তি করে কাজ করে। যদি আপনি ফেসবুক, ইন্সটাগ্রাম এর মত বড় সোশ্যাল মিডিয়ার অ্যাপ্লিকেশনগুলো ব্যবহার করতে চান তাহলে, প্রত্যেকটি অ্যাপ্লিকেশনের লাইট ভার্সন খুঁজে নিয়ে সেগুলো ব্যবহার করুন। তাহলে মোবাইল আর স্লো হবে না।

পুরনো মোবাইল এর Speed কিভাবে বাড়াবেন?

মোবাইল থেকে অপ্রয়োজনীও photo, video, song ডিলিট করে external এবং internal storage কে free রাখুন।
Application এবং browser cache & junk file remove করুন।
Background running application গুলিকে close করার পর নতুন অ্যাপ্লিকেশন চালু করুন।
Custom ROM install করুন।
Auto-Sync off করুন।
System aaps গুলিকে সর্বদা updated রাখুন।
Animation disable করুন।
Unused application uninstall করে file থেকে delete করে দিন।
Data saver option কে চালু রাখুন।

Leave a Reply

Back to top button