মোবাইল হ্যাং হলে কি করবেন?

মোবাইল ফোন হ্যাং হয়ে যাওয়া খুব কমন একটি ঘটনা . যদি আপনি খুব হাই কনফিগারেশনের কোন ফোন ইউজ না করে থাকেন সেক্ষেত্রে আপনার ফোনটি প্রায় হ্যাং হয়ে যেতে পারে . সাধারণত মোবাইল ফোন হ্যাং হয় যদি আপনি ফোনের ক্যাপাসিটি অতিরিক্ত রাস্তা কে প্রদান করেন তাহলে.  অর্থাৎ বুঝাই যাচ্ছে,  যদি আপনার ফোনটি কম ক্ষমতা সম্পন্ন হয় অর্থাৎ  এর    মেমোরি বা প্রসেসর   এর ক্ষমতা কম হয় এবং আপনি যদি একই সাথে আপনার ফোনকে অধিক কাজের নির্দেশনা প্রদান করে থাকেন তখন এটি অতিরিক্ত কাজের চাপে হ্যাং হয়ে যাবে.  যদিও আপনার ফোনে কোন কারিগরি ত্রুটির কারণে এটি এমনিতেও হ্যাক হতে পারে.  ফোন হ্যাং না হওয়ার জন্য আপনি যা করতে পারেন:

 # আপনি আপনার ফোনকে তার সাধ্যের অতিরিক্ত    টাস্ক দিবেন না.  অর্থাৎ যদি আপনার ফোনের মেমোরি 2gb হয় সেক্ষেত্রে আপনি ওভারি কোন গেমস অথবা অ্যাপস আপনার ফোনে রান করবেন না. এবং  একটি অ্যাপস রান করার পরে তা বন্ধ করে অন্য একটি অ্যাপস ওপেন করবেন.

# আপনার ফোনে যদি যথেষ্ট পরিমান মেমোরি ও প্রসেসিং পাওয়ার না থাকে তাহলে কোন অবস্থাতেই লাইভ ওয়ালপেপার বা থ্রিডি থিম আপনার ফোনে লোড দেবেন না.  কারণ এফএম লাইভ ওয়ালপেপার রান করার জন্য প্রচুর পরিমাণ মেমরি এবং প্রস্থান করা প্রয়োজন হয় সে ক্ষেত্রে আপনার ফোনের অন্যান্য অপারেশন রান করার সময়  তা হ্যাং হয়ে যেতে পারে.

# আপনার ফোনের অ্যাপ ক্যাশ ও built-in মেমোরি  ক্যাশ রেগুলার ক্লিয়ার করুন.  তাহলে  হ্যাং হওয়ার ঝুঁকি কমে যাবে.

# আপনার ফোনে ব্রাউজার  ক্যাশ ক্লিন করুন.

 উপরোল্লিখিত কাজ গুলোর মাধ্যমে আপনি আপনার ফোনকে হ্যাক হওয়া থেকে রক্ষা করতে পারবেন. কিন্তু যদি তার পরেও আপনার ফোন হ্যাং হয়ে যায় সে ক্ষেত্রে আপনি কি করবেন?

 ফোন হ্যাং হয়ে গেলে আপনাকে অবশ্যই ফোনটি রিস্টার্ট করতে হবে.  করার জন্য আপনি পাওয়ার বাটন প্রেস করে ধরে রাখতে হবে এভাবে 3 থেকে 4 সেকেন্ড ধরে রাখার পরে আপনার ফোনটি রিস্টার্ট হবে/  এছাড়াও আপনি আপনার ফোনের ব্যাটারি অবসানের মাধ্যমে আপনার ফোনকে রিস্টার্ট করতে পারেন তবে অবশ্যই এটি রিকমেন্ডেড নয়. 

Leave a Reply