Guides & Tips

ডিসপ্লে রিফ্রেশ রেট কি?

বর্তমান যুগে স্মার্টফোনের একটি কমন শব্দ হলো রিফ্রেশ রেট। কয়েক বছর আগেও কিন্তু এই রিফ্রেশ রেট নিয়ে কারো মাথা ব্যথা ছিল। তবে এই শব্দটি এখন বেশ জনপ্রিয়। তবে এখনো অনেকের জানা নেই এই রিফ্রেশ রেট আসলে কী? আর কেনই বা মোবাইল কোম্পানি এটি ব্যবহার করে।  

স্মার্টফোনের রিফ্রেশ রেট কী?

একটি স্মার্টফোনে এক সেকেন্ডে কত ক্লিয়ারভাবে ইমেজ পরিবর্তন হতে পারে তা যাচাই করা হয় রিফ্রেশ রেট দিয়ে। আর রিফ্রেশ রেটের পরিমাপের মাধ্যম হলো হার্জ যার সংক্ষিপ্ত রূপ (Hz)।

যে স্মার্টফোনের স্ক্রিন রিফ্রেশ রেট যত বেশি থাকে সে স্মার্টফোনে ভিডিও এবং ইমেজ কোয়ালিটি তত ক্লিয়ার এবং স্মুথ।

আমরা আমাদের স্মার্টফোনে ছবি এবং ভিডিও দেখে থাকি। কিন্তু প্রত্যেক ফোনের স্ক্রিনে ছবি এবং ভিডিওগুলো একইরকম ক্লিয়ার দেখা যায় না। মূলত রিফ্রেশ রেটের কারণেই এটি হয়ে থাকে।

১২০ হার্জ রিফ্রেশ রেটের একটি মোবাইল স্ক্রিনে সেকেন্ডে ১২০ বার ইমেজ পরিবর্তন করে। আর এই রিফ্রেশ রেটে যত বেশি হবে, স্ক্রিনের ছবি এবং ভিডিও তত ক্লিয়ার দেখাবে। বর্তমান যুগের স্মার্টফোনগুলোত ৬০, ৯০, ১২০ এবং সর্বোচ্চ ১৪৪ হার্জের রিফ্রেশ রেট থাকে। 

যদি কোনো স্মার্টফোনের রিফ্রেশ রেট ১৪৪ হার্জ হয়ে থাকে তাহলে সে ফোন থেকে ২৪ এফপিএস দৈর্ঘ্যের কোনো ছবি খুব সহজেই দেখা যাবে। এছাড়া ৬০ এফপিএস এর গেইম ও খেলা যাবে। এগুলো খুবই ক্লিয়ার দেখাবে এবং স্মুথভাবে পরিচালিত হবে। 

কয়েকটি ১৪৪ হার্জ রিফ্রেশ রেট এর ফোন হলো Asus ROG Phone 3/5, the Lenovo Legion Duel, Duel 2, Motorola Edge এবং Xiaomi Black Shark 4

কয়েকটি ১২০ হার্জ রিফ্রেশ রেট এর ফোন হলো – Huawei P50 Pro, OnePlus 9, 9 Pro, Oppo Find X3, X3 Pro, Samsung Galaxy S21, Sony Xperia 5 III এবং Xperia 1 III. 

রিফ্রেশ রেটে কী অনেক ব্যাটারি খরচ হয়?

না, রিফ্রেশ রেট বেশি হলে অতিরিক্ত ব্যাটারি খরচ হয় না। কারণ একটি স্মার্টফোন যত অত্যাধুনিক ফিচার সম্পন্ন হবে তার ব্যাটারিও তত শক্তিশালী হবে। যদি কোনো স্মার্টফোনে রিফ্রেশ রেট ১৪৪ হয়। তাহলে সে ফোনের ব্যাটারিও তত শক্তিশালী হবে। এক্ষেত্রে অতিরিক্ত ব্যাটারি ক্ষয় হয় সে ধারণা ভুল। স্বাভাবিক নিয়মেই ব্যাটারির চার্জ শেষ হয়। 

Leave a Reply

Back to top button