News

হারমোনি ওএস চালিত ফোন লঞ্চ হল চীনে। দেখতে আইফোনের মত

হারমোনি ওএস কি?

হারমোনি ওএস হলো “একটি ফিউচার-প্রুফ ডিস্ট্রিবিউটেড অপারেটিং সিস্টেম,” অর্থাৎ এটি একটি হুয়াওয়ের এর নিজস্ব অপারেটিং সিস্টেম। এটি হুয়াওয়ের আইওটি (IoT) ডিভাইস থেকে শুরু করে স্মার্ট হোম প্রোডাক্ট পর্যন্ত সকল ক্ষেত্রে এই অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহৃত হবে।

এটি হুয়াওয়ে দ্বারা তৈরিকৃত একটি নতুন অপারেটিং সিস্টেম যা হুয়াওয়ে এর সকল ডিভাইসসমূহ, অর্থাৎ মোবাইল, ওয়্যারেবল, স্মার্ট-হোম ডিভাইসসমূহতে ব্যবহার করা হবে। মূলত হুয়াওয়ে এর ডিভাইসসমূহকে একই ইকোসিস্টেমে আনার লক্ষেই এই হারমোনিওএস অপারেটিং সিস্টেম তৈরি করা।

হুয়াওয়ে জানিয়েছে, সম্পূর্ণ ইকোসিস্টেম এর জন্য একবার একটি অ্যাপ ডেভলপ করাই যথেষ্ট। একজন ডেভলপার হারমোনিওএস অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করে যেকোনো ধরনের এক্সপেরিয়েন্স তৈরী করতে পারবেন। হারমোনিওএস এডাপ্টেবল হওয়ায় সকল প্ল্যাটফর্মে উক্ত এক্সপেরিয়েন্স কোনো প্রকার সমস্যা ছাড়াই কাজ করবে।

যেসব ডিভাইসে ব্যাবহার করা হয়েছে হারমোনিওএস

হারমোনিওএস এর ভার্সন ২.০ লঞ্চ হয়েছে। হুয়াওয়ের স্মার্টফোন, হুয়াওয়ের নিজস্ব স্মার্ট টিভি ও এ এক্স ৩ ওয়াইফাই রাউটারে হারমোনিওএস অপারেটিং সিস্টেম এর ব্যবহার দেখা যাবে। এছাড়াও Huawei Mate Pad ও Mate pad pro এবং Huawei P50 সিরিজের ফোনসমূহেও হারমোনিওএস এর দেখা মিলেছে। সময়ের সাথে সাথে হুয়াওয়ে তাদের নিজস্ব প্রোডাক্ট ছাড়াও পার্টনারদের প্রোডাক্টসমূহে হারমোনিওএস যুক্ত করবে বলে জানিয়েছে হুয়াওয়ে।

অ্যান্ড্রয়েড vs হারমোনিওএস

হুয়াওয়ে এর ডকুমেন্টেশন ও মার্কেটিং এর তথ্য অনুযায়ী তাদের মোবাইল গুলোতে অ্যান্ড্রয়েড এর পরিবর্তে ব্যবহৃত হবে হারমোনিওএস। হুয়াওয়ে এর স্মার্টফোন শুরু থেকেই অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম ব্যাবহার করা হয়েছে। এর ফলে হারমোনিওএস এর অনেক গুরুত্বপূর্ণ কম্পোনেন্টস এখনো অ্যান্ড্রয়েড থেকে এডাপ্টেড বলে ধারণা করা হচ্ছে।

হুয়াওয়ে জানিয়েছে তাদের অ্যান্ড্রয়েড ভিত্তিক কাস্টম ওএস, ইএমইউআই (EMUI) এর সাথে অনেকটা সামঞ্জস্যপূর্ণ এই নতুন হারমোনিওএস। হুয়াওয়ে এর প্রদত্ত তথ্যে হারমোনিওএস এর ভিত্তি হিসেবে অ্যান্ড্রয়েড ওএস কে সরাসরি স্বীকার করা হয়নি। কিন্তু বাস্তবিক পক্ষে হারমোনিওএস এ এন্ড্রয়েড অ্যাপ চালানোর জন্য অ্যান্ড্রয়েড এর কোড ব্যবহৃত হয়েছে।

তার মানে হলো হুয়াওয়ে ফোনগুলোতে অ্যান্ড্রয়েড এর বদলে হারমোনিওএস ব্যবহার হলেও আসলে কিন্তু সেই অ্যান্ড্রয়েড এর বিভিন্ন সুফল পাবে এই অপারেটিং সিস্টেম।

হারমোনিওএস এ কি অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ চালানো যাবে?

হ্যাঁ, হুয়াওয়ে এর নতুন অপারেটিং সিস্টেম হারমোনিওএস এ ব্যবহার করা যাবে যেকোনো ধরনের অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ। সম্প্রতি যেই হুয়াওয়ের স্মার্টফোনগুলো বাজারে লঞ্চ হয়েছে সেগুলো অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ এবং গুগল মোবাইল সার্ভিস ছাড়াই বেশ ভালোভাবে চলতে দেখা গেছে। হারমোনিওএস এ প্লে স্টোরের পরিবর্তে রয়েছে হুয়াওয়ে এর নিজস্ব অ্যাপ মার্কেট, অ্যাপগ্যালারি

যেসব অ্যাপ অ্যাপগ্যালারিতে নেই, সেসব অ্যাপ এপিকে (APK) ফাইল ডাউনলোড করে ব্যবহার করা যাবে হারমোনিওএস চালিত ডিভাইসে। তবে ডাটা সিন্ক এর জন্য গুগল মোবাইল সার্ভিস এর উপর নির্ভরশীল অ্যাপ, যেমনঃ গুগল এর অ্যাপ বা যেকোনো থার্ড পার্টি অ্যাপ, কাজ করবেনা হারমোনিওএস চালিত ডিভাইসসমূহে।

হারমোনিওএস দেখতে কেমন

ইতিমধ্যে হুয়াওয়ের অনেক স্মার্টফোনে হারমোনিওএস এর আপডেট চলে এসেছে। এই অপারেটিং সিস্টেম কে প্রথম দেখায় হুয়াওয়ে এর ইএমইউআই এর সাথে অ্যাপল এর আইওএস এর সংমিশ্রন বলে মনে হবে। ইএমইউআই এর সাথে ডিজাইনের দিক দিয়ে অনেকটা মিল রয়েছে হারমোনিওএস এর। ইএমইউআই এর মত একই ডিজাইন ল্যাংগুয়েজ, কালার স্কিম, আইকন ও অ্যান্ড্রয়েডের মত নোটিফিকেশন সিস্টেম চোখে পড়বে হারমোনিওএস এ।

তবে সবকিছু ইএমইউআই থেকে কপি করে হারমোনিওএস এ বসিয়ে দেওয়া হয়েছে, এমন নয়। অবশ্যই ভিন্নতা রয়েছে হারমোনিওএস এ। যেমননঃ হারমোনিওএস এ বামদিক থেকে সোয়াইপ ডাউন করলে নোটিফিকেশন দেখা যায়। আবার ডানদিকে সোয়াইপ ডাউন করলে কন্ট্রোল সেন্টার দেখা যায়। এই ধরনের একই ফিচার দেখা যায় শাওমি এর মিইউআই তে (এবং আইফোনে)।

ট্যাবলেট এর জন্য হারমোনিওএস এ রয়েছে নতুন অ্যাপ ডক, যা মূলত হোমস্ক্রিনে থাকা কিছু অ্যাপ শর্টকাট এর কম্বো মাত্র। অ্যান্ড্রয়েড ১২ ও আইওএস ১৪ এর মত হারমোনিওএস এ ও গুরুত্ব পেয়েছে উইজেটস (Widgets)। Widgets সমূহের সাথে হারমোনিওএস এর বাড়তি সুবিধাও যুক্ত হয়েছে। খুব সহজে অ্যাপ আইকনে সোয়াইপ আপ করে উইজেটস তৈরী করা যাবে।

মাল্টিটাস্কিং এর ক্ষেত্রে ও উন্নতি এসেছে হারমোনিওএস এ। স্প্লিট স্ক্রিনের পাশাপাশি হুয়াওয়ে এর অ্যাপ মাল্টিপ্লাইয়ার ফিচার ব্যবহার করে একই অ্যাপ থেকেই একাধিক অ্যাপ ব্যবহার করা যাবে মাল্টিপল উইন্ডো ব্যবহার করে। হুয়াওয়ের তথ্যমতে ইতিমধ্যে ৪,০০০+ অ্যাপ এই ফিচারটি সাপোর্ট করে। তবে সাইডলোড করা অ্যাপসমূহে এই ফিচারটি কাজ না ও করতে পারে।

ইকোসিস্টেম এর উপর ও গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে এই হারমোনিওএস এ। এরই অংশ হিসেবে হুয়াওয়ের ওয়্যারেবলস ও একসেসরিজ এর সাথে খুব ভালোভাবে পেয়ার হবে হারমোনিওএস চালিত সকল ডিভাইস। হারমোনিওএস চালিত ডিভাইসসমূহে কোনো ফাইল সরাসরি ড্রাগ করে এক ডিভাইস থেকে অন্য ডিভাইসে পাঠানোর ফিচার পর্যন্ত রয়েছে।

ব্যবহারকারীদের কাছে সহজ ও আধুনিক ইউজার এক্সপেরিয়েন্স প্রদান করতে সক্ষম হবে হুয়াওয়ে এর এই নতুন অপারেটিং সিস্টেম। হারমোনিওএস কে হুয়াওয়ে একটি স্বাধীন অপারেটিং সিস্টেম বলে ঘোষণা করা হয়েছে।

Leave a Reply

Back to top button