Guides & Tips

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং সঞ্চয় হার ক্যালকুলেটর!

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং সঞ্চয় হার

কোনো নগদ গ্রাহক যদি ০ টাকা থেকে ১০০০.৯৯ টাকা পর্যন্ত তার নগদ একাউন্টে জমা রাখে তাহলে  সে তার মোট টাকার ০% মুনাফা পাবে। (অর্থাৎ ০-১০০০.৯৯ টাকা = ০% মুনাফা)
আবার কোনো নগদ গ্রাহক যদি ১০০০.১ টাকা থেকে ৫০০০.৯৯ টাকা পর্যন্ত তার নগদ একাউন্টে জমা রাখে তাহলে সে তার মোট টাকার ৫% মুনাফা পাবে। (অর্থাৎ ১০০০.১-৫০০০.৯৯ টাকা = ৫% মুনাফা)
কোনো নগদ গ্রাহক যদি ৫০০১ টাকা থেকে ৩০০০০০ টাকা পর্যন্ত তার নগদ একাউন্টে জমা রাখে তাহলে সে তার মোট টাকার ৭.৫% মুনাফা পাবে। ( অর্থাৎ ৫০০১-৩০০০০০ টাকা = ৭.৫% মুনাফা )

বিঃদ্রঃ উক্ত নগদ মোবাইল ব্যাংকিং সঞ্চয় বা মুনাফা পেতে হলে অবশ্যই অবশ্যই নগদ একাউন্টে খোলার সময় নগদ মুনাফার অপশানটি অন বা চালু করে রাখতে হবে।

চলুন জেনে নেওয়া যাক কীভাবে আমরা নগদ মোবাইল ব্যাংকিং সঞ্চয় হার হিসাব করবো। উদাহরণসরূপ ধরুন, একজন নগদ গ্রাহকের একাউন্টে আছে ১০,০০০ টাকা। উপরের নিয়ম অনুযায়ী সেই গ্রাহক বছরে মোট টাকার ৭.৫% অর্থাৎ ৭৫০ টাকা পাবে।

এখন হিসাবটা একেবারেই পরিষ্কার। গ্রাহক যদি ১২ মাসে ১০,০০০ টাকার জন্য পায় ৭৫০ টাকা তাহলে সে প্রতি মাসে পাবে ( ৭৫০/১২)=৬২.৫ টাকা। অর্থাৎ কোনো নগদ গ্রাহক যদি তার নগদ একাউন্টে ১০০০০ টাকা রাখে তাহলে সে মাসে ৬২.৫ টাকা করে মুনাফা পাবে। আর এটাই হলো নগদ মোবাইল ব্যাংকিং সঞ্চয় হার বা মুনাফা।
নগদ মুনাফা হার।

এখন স্বাভাবিকভাবে একজন নগদ গ্রাহক খুব সহজেই তার একাউন্টে থাকা জমাকৃত অর্থের পরিমাণের উপর নির্ভর করে মাস শেষে তার নগদ মোবাইল ব্যাংকিং মুনাফার বা সঞ্চয়ের হার বের করতে পারবে।

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং এজেন্ট কমিশন জিনিসটাও দিন দিন নগদ কর্তৃপক্ষ ভালো ভাবেই গ্রহণ করছে । যদিও ব্যাংকিং এজেন্ট কমিশন আগেরকার ব্যাংকগুলোতে প্রচলিত ছিল কিন্তু এবার নগদ মোবাইল ব্যাংকিং ব্যবস্থায়ও এজেন্ট কমিশন নিয়ে এসেছে।

বর্তমানে মোবাইল ব্যাংকিং সিস্টেমটি সকলের কাছে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। নগদ মোবাইল ব্যাংকিংও এর ব্যতিক্রম নয়। নগদ অফার, মুনাফা বা নগদ মোবইল ব্যাংকিং সঞ্চয়  হার অথবা নগদ ব্যাংকিং ইত্যাদি সুযোগ সুবিধার মাধ্যমে নগদ গ্রাহকদের কাছে ক্রমে জনপ্রিয় হয়ে উঠছে নগদ ব্যাংকিং সিস্টেম।

এরই প্রেক্ষিতে নগদ এখন গ্রাহকদের দিচ্ছে নগদ মোবাইল ব্যাংকিং সঞ্চয় বা মুনাফার সুবিধা। অর্থাৎ কোনো গ্রাহক যদি তার নগদ একাউন্টে একটি নিদির্ষ্ট পরিমাণ টাকা সঞ্চয় করে রাখে এবং সেটা নিদির্ষ্ট একটা সময় অতিবাহিত করে, তাহলে সে গ্রাহক তার সঞ্চয়কৃত টাকা দ্ধারা নগদ কর্তৃপক্ষ হতে নিদির্ষ্ট পরিমাণ মুনাফা পাবে।

২০২১ সালের ২৬শে মার্চের এক রিপোর্টে দেখা গেছে বর্তমানে নগদের মোট গ্রাহক সংখ্যা ৩ কোটি ৮০ লাখ এবং এটা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। এতো গ্রাহক থাকা সত্ত্বেও বেশ ভালো একটা সংখ্যা আছে যারা নগদ সঞ্চয় বা নগদ মুনাফার বিষয়ে কিছুই জানে না।

নগদ একাউন্টে গ্রাহক তার জমাকৃত টাকার উপর ভিত্তি করেই মুনাফা পাবে। নগদ কর্তৃপক্ষ দিন দিন তাদের গ্রাহকদের সুবিধার কথা চিন্তা করে সঞ্চয় হার বাড়াচ্ছে।

Leave a Reply

Back to top button