Mobile Finance

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং কি? কেন ? সুবিধা -আসুবিধা

বাংলাদেশ পোস্ট অফিস বা ডাক বিভাগের পোস্টাল ক্যাশ কার্ড এবং ইলেক্ট্রনিক মানি ট্রান্সফার সিস্টেম (EMTS) এর উন্নত সংস্করণ হলো নগদ। ২০১৮ সালের ১১ই নভেম্বর এর যাত্রা শুরু হয়। পরবর্তীতে, অর্থাৎ ২০১৯ সালের ২৬শে মার্চ, জনসাধারণের কাছে এটি পরিচিতি লাভ করে।

নগদ একাউন্ট কি

নগদে লেনদেন করতে হলে আগে একটি একাউন্ট খুলে নিতে হয় আর এটিই হলো নগদ একাউন্ট। ডাক বিভাগের মোবাইল ব্যাংকিং সেবা হলো নগদ। এটি বাংলাদেশ সরকারের ডাক বিভাগের একটি ডিজিটাল ব্যাংকিং সেবা, যার মাধ্যমে খুব সহজেই টাকা লেনদেন করা সম্ভব। ২০১৮ সালের ১১ই নভেম্বর এর যাত্রা শুরু হয়। এটি অনেকটা বিকাশ এর মতই।

নগদ একাউন্ট কেন খুলবো

বর্তমান সময়ে নগদ অনেক উন্নত হয়েছে। অনেক ক্ষেত্রে বিকাশ থেকেও নগদ এগিয়ে রয়েছে। তাই অনেকেই এখন নগদে লেনদেন করতে সাচ্ছন্দবোধ করেন। নগদেই এখন সবচেয়ে কম রেটে ক্যাশ আউট করা যায়। নগদ অ্যাপ থেকে ভ্যাটসহ প্রতি হাজারে ক্যাশ আউট চার্জ মাত্র ১১.৪৯ টাকা এবং *167# দিয়ে USSD পদ্ধতিতে প্রতি হাজার টাকা ক্যাশ আউট করার জন্য চার্জ কাটবে মাত্র ১২.৯৯ টাকা। যেখানে বিকাশে কাটে ১৪ টাকা। তাই আমার মতে আপনার নগদে একাউন্ট করা জরুরি।

নগদ মার্চেন্ট একাউন্টের সুবিধা

নগদ মার্চেন্ট একাউন্টের একটি সুবিধা হলো এখানে গ্রাহক আপনাকে QR কোড স্কেন করেই পেমেন্ট করতে পারবে। এতে করে যেমন দোকানদারের টাকা রাখার প্রয়োজন পরে না তেমনি গ্রাহক তার টাকা অনুযায়ী পেমেন্ট দিয়ে যায় ফলে দোকানে ঝামেলা হয় না। পাশাপাশি ভাংতি নিয়েও কোনো ঝামেলা হয় না।

নগদ মার্চেন্ট একাউন্ট খুলতে হলে যা যা কাগজ পত্র লাগে তা নিচে উল্লেখ করা হল।

  1. দোকানের ট্রেড লাইসেন্স
  2. ভোটার আইডি কার্ড এর ফটোকপি
  3. ২ কপি পাসপোর্ট সাইজের ফটো

নগদ মার্চেন্ট একাউন্ট খুলতে নিকটস্থ নগদ সার্ভিস সেন্টারে গিয়ে এবং ডিস্ট্রিবিউটের সাথে যোগাযোগ করুন।

নগদ একাউন্ট এর অসুবিধা

নগদ একাউন্ট এর কিছু অসুবিধা ও রয়েছে। যেমনঃ

  1. নগদ এজেন্ট দোকান এর সংখ্যা খুব কম।
  2. পিন নাম্বার হ্যাক হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা আছে।

নগদ থেকে বিকাশে টাকা ট্রান্সফার

  1. সর্বপ্রথম আপনার নগদ অ্যাপটি ওপেন করুন।
  2. এরপরে ফান্ড ট্রান্সফার এ ক্লিক করুন।
  3. ফান ট্রান্সফারের জায়গায় বিকাশ নির্বাচন করুন।
  4. এরপর আপনি কত টাকা পাঠাতে চান সেই টাকার পরিমাণ লিখুন।
  5. সবশেষে আপনার পাসওয়ার্ড লিখে সেন্ড মানি বাটনে ক্লিক করুন।

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং মুনাফা

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং এ সর্বোচ্চ মুনাফার পরিমাণ হল ৬% এবং সর্বনিম্ন ৪%। এক্ষেত্রে আপনার কমপক্ষে ১০০১ টাকা জমা থাকতে হবে।

টাকার পরিমাণমুনাফার হার
০-১০০০ টাকা০%
১০০১-৫০০০ টাকা৪.০%
৫০০১ টাকার উপরে৬%

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং ব্যালেন্স চেক কোড

আপনার নগদ একাউন্টের ব্যালেন্স চেক করার জন্য নগদ কোড *167# ডায়াল করুন।

নগদ কি সরকারি প্রতিষ্ঠান

না, বর্তমানে নগদের পুরো মালিকানা বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের হাতে। আগে থার্ড ওয়েভ টেকনোলজিস নামের একটি প্রতিষ্ঠান নগদের মালিকানায় ছিল, যার শেয়ারধারী ছিল অনেকে।

Leave a Reply

Back to top button